1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : News 52 Bangla : Nurul Huda News 52 Bangla
শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৩৪ অপরাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ :
বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন ইউনিটের নির্দেশে কাপ্তাই খামার হতে ৭টি কালিম পাখি উদ্ধার আখাউড়া থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে গ্রেফতার ৯ কাপ্তাইয়ে সমাজসেবার ১১লাখ ৪৫ হাজার টাকার ঋণ বিতরণ জেলা পরিষদ সদস্য নির্বাচন,পাথরঘাটায় ২ প্রার্থীর পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন কাপ্তাইয়ে উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যানের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্থর স্হাপন করেন আখাউড়ায় শারদীয় দুর্গোৎসবের সমাপ্তি, দিনে সিঁদুর খেলা কাপ্তাইয়ে কর্নফুলি নদীতে প্রতিমা বির্সজন কাপ্তাই সেনাজোন কর্তৃক জেএসএস সশস্ত্র কালেক্টর আটক কাউখালীতে ৮০টি প্রাতিষ্ঠানিক জলাশয়ে পোনামাছ অবমুক্তকরণ কুষ্টিয়ায় সাফ জয়ী ফুটবলার নিলাকে সংম্বর্ধনা ও নগদ অর্থ পুরুস্কার

সুন্দরবনে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে তিন ‘জলদস্যু’ নিহত

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০১৮

সুন্দরবনে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তিনজন নিহত হয়েছেন, যারা জলদস্যু বলে দাবি করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীটি। নিহতদের মধ্যে মুন্না বাহিনীর প্রধান স্বপন পোদাও রয়েছেন। এ সময় সাতটি আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়।

বুধবার সকাল সাড়ে সাতটার পর বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার মাঝেরচর এলাকায় এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। তবে নিহতদের বিস্তারিত পরিচয় র‌্যাব জানাতে পারেনি র‌্যাব।

র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক উইং কমান্ডার হাসান ইমন আল রাজীব ঢাকাটাইমসের এই প্রতিবেদককে বলেন, জলদস্যু মুন্না বাহিনীর প্রধান স্বপন পোদা তার দলের সদস্যদের নিয়ে সুন্দরবনের মাঝেরচর এলাকায় অবস্থান করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি দল ওই এলাকায় অভিযান চালাতে যায়। স্বপন বাহিনীর সদস্যরা র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়তে থাকে। র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। প্রায় এক ঘণ্টা বন্দুকযুদ্ধের একপর্যায়ে জলদস্যুরা পিছু হটে বনের গহীনে চলে যায়। পরে র‌্যাব সদস্যরা সেখানে তল্লাশি চালিয়ে তিনজনের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার এবং বেশকিছু অস্ত্র গুলি উদ্ধার করে।

গোলাগুলি থেমে গেলে নদীখালে মাছ ধরা জেলেরা সেখানে এসে মুন্না বাহিনীর প্রধান স্বপন পোদাসহ তিনজনকে শনাক্ত করে।

উদ্ধার হওয়া অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে একনলা বন্দুক দুটি, কাটা রাইফেল একটি, চারটি পাইপগান ও বিভিন্ন ধরনের বন্দুকের ৩৮ রাউন্ড গুলি ও পাঁচটি দেশীয় ধারালো অস্ত্র।

স্বপন পোদা মুন্না বাহিনী নামে জলদস্যু বাহিনী গড়ে তুলে সুন্দরবন ও বঙ্গোপসাগরের ওপর নির্ভরশীল জেলে, বাওয়ালি ও মৌয়ালদের অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় করে আসছিল বলে দাবি করেন র‌্যাবের ওই কর্মকর্তা। এছাড়া গত ৪ জানুয়ারি মুন্না বাহিনীর সদস্যরা পটুয়াখালীর সোনারচর এলাকা দিয়ে চার জেলেকে মুক্তিপণের দাবিতে অপহরণ করে। এরপর থেকে ওই বাহিনীকে ধরতে অভিযান শুরু করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
2019 All rights reserved by |Dainik Donet Bangladesh| Design and Developed by- News 52 Bangla Team.
Theme Customized BY News52Bamg;a