1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : News 52 Bangla : Nurul Huda News 52 Bangla
শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:৪৬ অপরাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ :
আখাউড়ায় গ্রেফতারী পরোয়ানাভুক্ত ৫ আসামী গ্রেফতার। কাপ্তাইয়ে ১০ আর ই ব্যাটালিয়নের আয়োজনে শান্তিচুক্তির ২৫ বছর পূর্তি কেউ শান্তির নামে অশান্তি সৃষ্টি করলে এক বিন্দু ছাড় দেওয়া হবে না -জোন কমান্ডার কাপ্তাইয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস ও বিজয় দিবস উদযাপন লক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত খুলনা মৎস্য অধিদপ্তরের মাসিক সমন্বয় সভা বেনাপোলে মদ গাঁজা ফেনসিডিলসহ আটক ৩ কাপ্তাইয়ে মাদক আস্থানা পুলিশ ভেঙ্গে দেওয়ায় মাদক সেবীর হামলায় আহত-২ কাপ্তাই বিউবো মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছ ২২ জন, পাশের হার ৯৬.৫৯% আখাউড়ায় ধর্ষণ মামলার আসামী গ্রেফতার এবার বৃষ্টিপাত কম হওয়ার দরুণ কাপ্তাই লেকে পানি স্বল্পতায় বিদ্যুৎ উৎপাদন সর্বনিন্মে

নবীনগরে ধর্ষক নাঈমের বাবার গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২২ জুন, ২০১৯

সায়মন ওবায়েদ শাকিল, নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) থেকে : নবীনগরে ধর্ষক নাঈমের বাবার গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিন ইউনিয়নে শালিকাকে ধর্ষনের পর হত্যার ঘটনায় দুলাভাই নাঈম ইসলামকে (২৭) আটক করেছে পুলিশ। ছেলের এই অপকর্মের ঘটনায় লজ্জায় আত্মহত্যা করেছেন ধর্ষক নাঈমের বাবা বসু মিয়া।

গত ২০ জুন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায় নাঈম ইসলাম (২৭) শালিকা তামান্না আক্তারকে (১৫) ধর্ষণের পর হত্যা করে। ছেলের এই অপকর্মের ঘটনায় এলাকায় জানাজানি হলে লজ্জায় তিনি নবীনগর উপজেলায় এক আত্মীয়ের বাড়িতে চলে যান। হতাশাগ্রস্ত বাবা ছেলের এই অপকর্ম সহ্য করতে না পেরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার গোসাইপুর গ্রামে এক আত্মীয়ের বাড়িতে শনিবার ভোরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন নাঈমের বাবা বসু মিয়া।

সকালে নবীনগর থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছেন ।নিহত বসু মিয়া ব্রাহ্মনবাড়িয়া সদর উপজেলার নাটাই (দক্ষিণ) ইউনিয়নের শালগাঁও গ্রামের মৃত মলাই মিয়ার ছেলে।

উল্লেখ্য, গত ২০শে তামান্নার বড় বোন নাঈমের স্ত্রী স্মৃতি আক্তার জানান, নাঈম ও তার বাবা বসু মিয়া জেলা শহরের সড়ক বাজারে নৈশপ্রহরীর কাজ করেন। গত (১৯জুন) সোমবার বাবার বাড়িতে খবর দিয়ে তামান্নাকে বেড়াতে আসতে বলেন নাঈম। রাতে আমার শ্বশুর বসু মিয়া শহরে পাহাদারের কাজ করতে গেলেও নাঈম জাননি। নাঈম এর বউ কাজে না যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে নাঈম জানায়, তিনি সকালে ঢাকায় যাবেন তার মাকে আনতে।

তিনি আরও জানান, রাত সাড়ে নয়টার দিকে নাঈম আমের জুস নিয়ে তার মেয়ে জান্নাতকে খাওয়ায়। জুস খেয়ে জান্নাত ঘুমিয়ে পড়ে। এরপর তামান্নাকেও জুস খেতে বললে তামান্না জুস না খাওয়ায় নাঈম এর বউ স্মৃতি সেই জুস খান। জুস খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্মৃতি অচেতন হয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। সেই সুযোগে নাঈম তার শালিকার উপর ঝাপিয়ে পড়েন, ধর্ষণের সময় চিৎকার শালিকা তামান্নাকে হত্যা করেন বলে জানিয়েছে ঘাতক নাঈম।

সকালে ঘুম থেকে ওঠে স্মৃতি তামান্নাকে ডাক দিলেও সে কোনো সাড়া দেয়নি। এরপর তামান্নার কাছে গিয়ে দেখেন তার শরীর রক্তাক্ত। খবর পেয়ে গ্রামের স্থানীয় এক ব্যক্তি বাড়িতে আসলে নাঈম পালিয়ে যান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
2019 All rights reserved by |Dainik Donet Bangladesh| Design and Developed by- News 52 Bangla Team.
Theme Customized BY News52Bamg;a