1. te@ea.st : 100010010 :
  2. rajubdnews@gmail.com : admin :
  3. ahamedraju44@gmail.com : Helal Uddin : Helal Uddin
  4. nrbijoy03@gmail.com : Nadikur Rahman : Nadikur Rahman
  5. shiningpiu@gmail.com : Priyanka Islam : Priyanka Islam
  6. admin85@gmail.com : sadmin :
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৩:১৯ অপরাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ :

একেরপর এক দূর্ঘটনার কবলে ইবির বাস, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০১৯

ইবি প্রতিনিধি-

পরিবহন নির্ভর ক্যাম্পাস ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি)। কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ হতে যথাক্রমে ২৪ ও ২২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত হওয়ায় অনেকটা পরিবহন নির্ভরশীল এ বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব পরিবহন কম থাকায় ভাড়া করা বাস দিয়ে পরিবহন সঙ্কট নিরসনের ব্যবস্থা করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু একেরপর এক দূর্ঘটনার কবলে পড়ছে ফিটনেসবিহীন ভাড়ায় চালিত ঝিনাহদহগামী এসব পরিবহনগুলো। মাত্র ১ সপ্তাহের ব্যবধানে ঝিনাইদহগামী দুটি বাস মারাত্মক দূর্ঘটনার কবলে পড়ে। কিন্তু এসব দূর্ঘটনায় হতাহতের কোন ঘটনা ঘটেনি। ২০১৪ সালে টিটু নামের এক শিক্ষার্থীর অকালে প্রাণ ঝরে এ বাস দূর্ঘটনায়। একেরপর এক দূর্ঘটনার ফলে বাসে যাতায়াতকারী শিক্ষার্থীদের মাঝে বিরাজ করছে চরম আতঙ্ক।

জানা যায়, ঝিনাইদহ বাস মালিক সমিতি কর্তৃক ভাড়া করা ‘টিএস মটরস’ নামে একটি বাস মঙ্গলবার সকালে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা লেগে দূর্ঘটনার কবলে পড়ে। বাসে কোন শিক্ষার্থী না থাকায় তেমন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। তবে বাসের হেলপার গুরুতর আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পরিবহণ প্রশাসক অধ্যাপক ড. রেজওয়ানুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রতক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সকালে ঝিনাইদহের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া বাসটি মেয়ে শিক্ষার্থীদের আনতে ঝিনাইদহ অভিমুখে যাচ্ছিল। ক্যাম্পাসের পার্শবর্তী গাড়াগঞ্জ এলাকায় পৌছালে এক্সেল ভেঙ্গে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ফেলে বাসটি। এসময় সড়কের পাশে এক গাছের সাথে ধাক্কা লেগে গাড়ির সামনের কাচ ভেঙ্গে গাড়িটি দুমড়েমুচড়ে যায়।

এর আগেও গত ১১ ডিসেম্বর ক্যাম্পাস থেকে ফেরার পথে ঝিনাইদহগামী ইবির ভাড়া করা ‘নবচিত্র’ নামে একটি বাসের ইঞ্জিনে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। আশেপাশে পানির ব্যবস্থা থাকায় সকলের প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনা সম্ভব হয়। তবে সেদিন আগুন নিয়ন্ত্রনে না আনলে ইঞ্জিন বিস্ফোরনের সম্ভাবনা ছিল। যার ফলে ব্যাপক হতাহতের ঘটনা ঘটত বলে শিক্ষার্থীরা আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন।

এ বিষয়ে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, ‘ফিটনেসবিহীন গাড়িগুলোতে বার বার দূর্ঘটনা ঘটলেও প্রশাসন এ ব্যাপারে কোন দৃষ্টিপাত করছে না। কিছুদিন আগে আরেকটি বাসে আগুন লেগেছিল। পরিবহন নিয়ে আমরা আর কত ভোগান্তি পোহাবো?’

এ বিষয়ে পরিবহণ প্রশাসক অধ্যাপক ড. রেজওয়ানুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘ঘটনাটি আমি শুনেছি। ভাগ্যের ব্যাপার গাড়িতে কোন যাত্রী ছিলনা। আমরা কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ জেলা বাস মালিক সমিতিকে বেশ কয়েকবার অবহিত করেছি। কিন্তু তাদের সাড়া পাওয়া যাচ্ছেনা। কাল আবার আমরা তাদের অবহিত করবো l

 

 

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
2019 All rights reserved by |Dainik Donet Bangladesh| Design and Developed by- News 52 Bangla Team.
Theme Customized BY LatestNews