1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : News 52 Bangla : Nurul Huda News 52 Bangla
সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১০:০০ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ :
এবার বৃষ্টিপাত কম হওয়ার দরুণ কাপ্তাই লেকে পানি স্বল্পতায় বিদ্যুৎ উৎপাদন সর্বনিন্মে সাতক্ষীরার শীর্ষ চোরাকারবারী ৩০ বোতল ফেন্সিডিল সহ আটক কাপ্তাই আপস্ট্রিম জেটিঘাট কচুরিপানা যানজট অপসরণে ৪০ দিনের কর্মসূচি উদ্বোধন কাপ্তাই উপজেলা বিএনপির ৩ নেতাকে মিথ্যা মামলা ও গ্রেপ্তারের নিন্দা ও প্রতিবাদ কেপিএমে বিসিআইসি চেয়ারম্যানকে ফুলেল শুভেচ্ছা অংশীজনদের অংশগ্রহণে কাপ্তাই সুইডেন পলিটেকনিকে সুশাসন প্রতিষ্ঠা শীর্ষক মতবিনিময় সভা বর্ণিল আয়োজনে রাঙ্গামাটি প্রেস ক্লাবের ৪৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত কাপ্তাই সুইডিশ মাদ্রাসার ২১তম বার্ষিক মাহফিল ডুমুরিয়া প্রেসক্লাবে সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত কাপ্তাই তথ্য অফিসের আয়োজনে ” এসো মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনি”

রাজউকের নিষেধের পরও দক্ষিনখানে নকশা বহির্ভূত ভবনের নির্মাণকাজ চলছে

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : সোমবার, ৯ মার্চ, ২০২০

এফ এম আনসারী : রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) এর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার নিষেধের পরও দক্ষিনখান এলাকার চালাবন, শাহ জুমুর উদ্দিন রোডে একটি সাড়ে সাততলা ভবনের নির্মানকাজ চালিয়ে যাচ্ছে রুপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাস কোম্পানি লিমিটেড (আরপিজিসিএল) এর মহাব্যবস্থাপক (পরি উন্ন) এর প্রকৌ, মোঃ গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী। ভবনটি তিনি রাজউকের ইমারত নির্মান বিধিমালা অনুযায়ী করছেন না বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের পক্ষ থেকে অভিযোগ উঠেছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই এলাকার একাধিক বাসিন্দা বলেন, রাজউকের নিয়মানুযায়ী একটি ভবন নির্মানকালীন সময়ে ভবনের সামনে তথ্য সম্বলিত সাইনবোর্ড ও নিরাপত্তা জনিত কারনে সেফটিনেট ব্যবহার করার বাধ্যবাধকতা থাকলেও তিনি তা মানেননি। অর্থাৎ ভবনের সামনে রাজউকের অনুমোদিত কোন তথ্য সম্বলিত সাইনবোর্ড ও সেফটিনেট নেই। এ বিষয়ে রাজউকের সংশ্লিষ্ট জোনাল অফিসের ইমারত পরিদর্শককে অবহিত করা হয়েছে। তিনি ভবন নির্মাতাকে সতর্ক করেছেন।
তারা আরো জানান, প্রকৌশলী গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী আরপিজিসিএলে নানা অপকর্ম করে রাতারাতি কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। এ টাকা দিয়ে সে ২০০৫ সালে দক্ষিনখানের ওই এলাকায় চার কাঠা পরিমান একটি জায়গা কেনেন। ওই জায়গায় তিনি এ ভবনটি নির্মাণ করছেন। বর্তমানে তিনি উত্তরা আবাসিক এলাকার ৯ নম্বর সেক্টরের ৩/এফ নম্বর রোডের ২৩ নম্বর বাড়িতে স্বপরিবারে বসবাস করেন। শোনা যায়, এ বাড়িটি তার নিজের। এছাড়া সে চারটি আলিশান গাড়ি ব্যবহার করেন। তার গ্রামের বাড়ি দিনাজপুরে। সেখানে তার একটি পেট্রোল পাম্প আছে এবং নামে বেনামে অনেক অর্থ সম্পদ রয়েছে।
জানা যায়, তিনি ১৯৯৩ সালে চাকরীতে যোগদান করেন। ২০০৫ ইং সালে তিনি ১০ লাখ টাকা দিয়ে ওই জায়গাটি কেনেন। ২০০৬ সালে তিনি উত্তরায় একটি ফ্ল্যাট কেনেন।
দক্ষিনখানে নির্মানাধীন ওই ভবনটি সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট ইমারত পরিদর্শকের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভবনটি রাজউকের অনুমোদিত নকশানুযায়ী নির্মান করার জন্য বলা হয়েছিল। কিন্তু তিনি শোনেননি। এ বিষয়ে নোটিশ করার প্রক্রিয়া চলছে।
এ বিষয়ে আরপিজিসিএলের মহাব্যবস্থাপক (পরি ও উন্ন) এর প্রকৌ, মোঃ গোলাম কিবরিয়া চৌধুরীর কাছে জানতে তার মোবাইল ফোনে বেশ কয়েকবার কল করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। সরাসরি তার অফিসে গিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
2019 All rights reserved by |Dainik Donet Bangladesh| Design and Developed by- News 52 Bangla Team.
Theme Customized BY News52Bamg;a