1. te@ea.st : 100010010 :
  2. rajubdnews@gmail.com : admin :
  3. ahamedraju44@gmail.com : Helal Uddin : Helal Uddin
  4. nrbijoy03@gmail.com : Nadikur Rahman : Nadikur Rahman
  5. shiningpiu@gmail.com : Priyanka Islam : Priyanka Islam
  6. admin85@gmail.com : sadmin :
বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১০:২৬ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ :
নাজিরপুরে নির্মানাধীন মডেল মসজিদের পাইলিংয়ের স্তম্ভ পড়ে নিহত ১,আহত ২ কাউখালীতে জাতীয়তাবাদী যুবদলের কর্মী সভা অনুষ্ঠিত কাপ্তাই উচচ বিদ্যালয়ে যৌন হয়রানী বিষয়ে সভা ও প্রতিরোধ কমিটি গঠন নোয়াখালিতে সাংবাদিক হত্যার প্রতিবাদে আখাউড়ায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ বাহুবলে পুলিশের ধাওয়ায় সিএনজি উল্টে চালক নিহত,আহত ৪ সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যার বিচার দাবিতে; আবেদ আহমেদের ভিন্নধর্মী প্রতিবাদ কাপ্তাইয়ে বিশ্ব স্কাউট দিবস পালন বাহুবলে গাঁজা সেবন করার সময় যুবক আটক পিরোজপুরে নিখোঁজের ৪দিন পর নদীতে শ্রমিকের লাশ উদ্ধার বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে কাপ্তাইয়ে ভলিবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধন

সরকারি সতীশ চন্দ্র এস সি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তির তালিকায় ছেলের নাম

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২১

এইচ আর রুবেল, সিলেট থেকে :

করোনাভাইরাসের কারণে এবার সরকারি বিদ্যালয় গুলোতে লটারির মাধ্যমে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে।

গত সোমবার অনলাইনে লটারির ফলাফল প্রকাশ করা হয়। অনলাইনে ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পর অনলাইন দোকানগুলোতে ছিল অভিভাবকদের ভিড়।

প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে সুনামগঞ্জের সরকারি সতীশ চন্দ্র বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে এক ছেলে শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পেয়েছে।

বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলছে, কম্পিউটারে আবেদন করার সময় ভুল করে আমাদের বিদ্যালয়ে আবেদন করা হয়েছে।

ভর্তির সুযোগ পাওয়া শিক্ষার্থীর নাম লিয়ন রায়। সে পৌর শহরের ষোলোঘরের বাসিন্দা। সে ষষ্ঠ শ্রেণিতে মর্নিং শিফটে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে বলে প্রকাশিত ফলাফলে উল্লেখ করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সমালোচনার পাশাপাশি অনেকে রসিকতাও করছেন।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ৬ষ্ঠ শ্রেণির দুই শিফটে ২৪০টি আসন রয়েছে। লটারিতে ছেলের নাম ছাড়াও তালিকায় একই শিক্ষার্থীর নাম একাধিকবার এসেছে। তাদের ব্যাপারে মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

শিক্ষার্থী লিয়ন রায়ের বাবা তপন রায় বলেন, অনলাইনে আবেদন করার সময় দোকানী ভুল করে প্রথমে সতীশ চন্দ্র বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে আবেদন করেছে। পরে আবারও দোকানদারের পরামর্শে সরকারি জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয়ে আবেদন করা হয়। লটারির ফলাফল প্রকাশের পর দেখা যায় সে সতীশ চন্দ্র বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে চান্স পেয়েছে।

সতীশ চন্দ্র (এসসি) বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাফিজ মো. মাশহুদ চৌধুরী বলেন, কম্পিউটারে আবেদন করার সময় ভুল করে সতীশ চন্দ্র বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে আবেদন করা হয়েছে। অনেক শিক্ষার্থী ৩-৪ বার করে আবেদন করেছে। ফলে তাদের নাম লটারিতে ৩-৪ বার করে এসেছে।

যাদের একাধিকবার নাম এসেছে তাদের বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত নেবেন? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করে তাদের বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
2019 All rights reserved by |Dainik Donet Bangladesh| Design and Developed by- News 52 Bangla Team.
Theme Customized BY LatestNews